Dec 15, 2017
নিউইয়র্কে বাংলাদেশীকে খুনের মামলায় এক আমেরিকানের আজীবন দন্ড

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : নেশাগ্রস্ত দুর্বৃত্তদের মারামারি থামাতে গিয়ে দুই দুর্বৃত্তের বেধড়ক পিটুনিতে নিহত বাংলাদেশী ইশতিয়াক কাদির ওরফে রবি (৫১)কে হত্যার মামলায় এক আমেরিকানের ২৩ বছর থেকে আজীবন জেল হয়েছে। নিউইয়র্কে ফাঁসি বা মৃত্যুদন্ড না থাকায় ৩২ বছর বয়েসী এই দুর্বৃত্ত ডেভিড লুইমকে হয়তো মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কারাগারেই কাটাতে হবে। নিউইয়র্ক সিটির কুইন্স সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি গ্রেগরী এল ল্যাসাক এ রায় প্রদান করেন। কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট এটর্ণী রিচার্ড এ ব্রাউন এনআরবি নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মামলার উদ্ধৃতি দিয়ে ডিস্ট্রিক্ট এটর্নী জানান, ২০১২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ৪০ মিনিটে নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকার হিলসাইড এভিনিউতে বাংলাদেশী মালিকানাধীন একটি বারে নেশাগ্রস্তরা মারপিটে লিপ্ত হয়। সে সময় সেখানে ছিলেন রবি। তিনি মারপিট থামাতে গিয়ে উল্টো আক্রমণের শিকার হন। রবি মেঝেতে পড়ে গেলে ডেভিড লুইমি তাকে বেধড়ক লাথি, ঘুষি এবং মাথায় আঘাত করতে থাকেন। এ অবস্থায় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন রবি। দীর্ঘ প্রায় দু’বছর কোমায় থেকে ২০১৪ সালের ১৪ মে ফ্লাশিংয়ে অবস্থিত লং আইল্যান্ড কেয়ার সেন্টারে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগের আগ পর্যন্ত রবির জ্ঞান ফিরলেও কোন কথা বলতে পারেননি। তাকে খাদ্য দেয়া হয় টিউব এবং ভ্যান্টিলেটারে। রবির চাচা ইলিয়াস কবির জানান, ১৬৮-০২ হিলসাইড এভিনিউতে অবস্থিত ‘হিলসাইড ইন’ নামক বারে বন্ধুদের সাথে সাক্ষাতের জন্যে রবি গিয়েছিলেন। সে সময় মদ্যপ অবস্থায় ভিনদেশীরা হাঙ্গামার চেষ্টা করে। তা থামাতে গিয়েই আক্রান্ত হন রবি। দুই যুবক তার ওপর চড়াও হয়। রবি কাজ করতেন ম্যানহাটানে একটি রেস্টুরেন্টে ওয়েটার হিসেবে। ডিস্ট্রিক্ট এটর্নী মামলার উদ্ধৃতি দিয়ে আরো জানান, ঘাতকেরা গা ঢাকা দিয়েছিল। কিন্তু ২০১৪ সালের মার্চে রেড লাইট অতিক্রমের জন্যে টহল পুলিশ কর্তৃক জিজ্ঞাসাবাদের সময়েই লুইমাকে পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়। জানা গেছে, রবির স্ত্রী দেশে থাকেন। রবির সিটিজেনশিপের ইন্টারভিউর তারিখ সম্পর্কিত চিঠি বাসায় এসেছিল এমন পরিস্থিতির কয়েকদিন পর। সিটিজেন হয়েই স্ত্রীর জন্যে স্পন্সর করতে চেয়েছিলেন। ইন্টারভিউয়ের কয়েকদিন আগেই এমন নিষ্ঠুরতার শিকার হওয়ায় স্ত্রী আর আসতে পারেননি। ১৯৮৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে আগত রবির বোনসহ আত্মীয়-স্বজনেরা নিউইয়র্কে বসবাস করছেন।

 

0 Comments

Leave a Comment

মহিউদ্দিন স্মরণে দোয়া মাহফিল

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): চট্টাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ইন্তেকালে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করা হয়েছে। দলের পক্ষ থেকে সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ এক বিবৃতিতে এই শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) দিবাগত ভোর রাত ৩টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর মেহেদিবাগে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন ইন্তেকাল করেন। খবর ইউএনএ’র।
এদিকে সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিনের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১৫ ডিসেম্বর শুক্রবার এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এদিন রাত ৯টায় জ্যাকসন হাইটসের নিউ মেজবান রেষ্টুরেন্টে এই দোয়া মাহফিল হবে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

পাঠকের মন্তব্য

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন।
ধন্যবাদ।