Sunday, November 19, 2017


অনুপম বড়ুয়া টিপু (প্যারিস থেকে) : তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, ফ্রান্স শাখা’র উদ্যোগে ‘সুন্দরবন রক্ষার কনভেনশন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১৩ আগস্ট স্থানীয় সময় রোববার বিকালে প্যারিসের গার দো নর্দের ‘কাফে পারিজিয়ান’-এ অনুষ্ঠিত এ কনভেনশনে ফ্রান্স শাখার ২ বছর মেয়াদি নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষণা ও কনভেনশনে প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।
ফাহাদ রিপনকে আহ্বায়ক ও রাকিবুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট ফ্রান্স শাখার এই জাতীয় কমিটিতে রহমতুল্লাহ চৌধুরী সুজন ও নিলয় সুত্রধর সুমনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়।
ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্যতম বাংলাদেশের সুন্দরবনের পাশে কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে আয়োজিত এ ফ্রান্স কনভেনশনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।
কনভেনশনে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কমিটি ফ্রান্স শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন ফ্রান্স শাখার সাধারণ সম্পাদক ফাহাদ রিপন।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জাতীয় কমিটি ফ্রান্স শাখার বিদায়ী কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ (মার্কসবাদী)’র সংগঠক সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার।
কনভেনশনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা ও গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকি।
কনভেনশনে আরও বক্তব্য দেন জাতীয় কমিটির ফ্রান্স শাখার কর্মী ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, ফ্রান্স শাখার সম্পাদক আহাম্মেদ আলী দুলাল এবং বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ফ্রান্স শাখার সমন্বয়ক মাসুক মিয়া মামুন।
কনভেনশনের প্রধান বক্তা অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, “আমরা যে পরিবেশ আন্দোলনের কথা বলি, তা আজ বাংলাদেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। এটা বৈশ্বিক আন্দোলনে পরিণত হয়েছে। এটা একদিনে তৈরি হয়নি, আর আমরা আমাদের আন্দোলনের বিষয়ে হঠাৎ করে অবস্থান নেইনি। আমরা নিজেরা আলোচনা করেছি, তথ্য উপাত্ত দিয়ে, গবেষণার মাধ্যমে প্রতিটা বিষয় বোঝানোর চেষ্টা করেছি এবং আমরা বোঝাতে সক্ষম হয়েছি।”
তিনি আরও বলেন, “বাংলাদেশে সুন্দরবন রক্ষার প্রশ্নে সারা বিশ্বে আমরা যে সাড়া ফেলতে পেরেছি, তা বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের সহযোগিতা ও সম্পৃক্ততার কারণে। রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কারণে সুন্দরবন যে ধ্বংস হয়ে যেতে পারে, তা শুধু আমরাই বলিনি, দেশের সরকারী দলের বুদ্ধিজীবীরাও বলেছে নানাভাবে।”
স্বাধীনতা আন্দোলনে সাধারণ মানুষের যে স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ ছিল, এই সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলনেও সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ ও সমর্থন আছে বলে দাবি করেন আনু মুহাম্মদ।
অনুষ্ঠানে প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন জাতীয় কমিটি ফ্রান্স শাখার বিদায়ী কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম, যুব ইউনিয়ন ফ্রান্স কমিটির সভাপতি রমেন্দ্র কুমার চন্দ, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ফ্রান্স শাখার সংগঠক জুয়েল দাশ রায় লেনিন ও ফ্রান্স প্রবাসী আরিফুল হক।
প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষে বাংলাদেশ তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে ফ্রান্স শাখার জন্য দুই বছরের কার্যকরী কমিটি ঘোষণা করেন জাতীয় কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ।
নব গঠিত এ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন আহাম্মেদ আলী দুলাল, রমেন্দ্র কুমার চন্দ, সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার, মাসুক মিয়া মামুন, জুয়েল দাশ রয় লেনিন, তপু বড়ুয়া, মেহেদী হাসান, তানভীর সরকার শাওন, রাজু আহমেদ, শুভাশিষ রায় শুভ ও এলান খান চৌধুরী।

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ।