Nov 21, 2017

নিউইয়র্ক : জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ঈদ জামাতের একাংশ। ছবি-এনআরবি নিউজ।

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : হারিকেন হার্ভে বিধ্বস্ত টেক্সাসের হিউস্টন ছাড়া আমেরিকার সর্বত্র ত্যাগের মহিমায় বিপুল উৎসাহে ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। বাংলাদেশীদের ব্যবস্থাপনাধীন আড়াই শতাধিক সহ ২৬ শতাধিক মসজিদের উদ্যোগে ১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। শতাধিক স্থানে খোলা মাঠেও ঈদের জামাত হয় হাজার হাজার মুসল্লীর অংশগ্রহণে। একইভাবে ফ্লোরিডা, ভার্জিনিয়া, ক্যালিফোর্নিয়া, মিশিগান প্রভৃতি স্থানে বাংলাদেশী স্টাইলে গরু কোরবানী দেয়া হচ্ছে। নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, পেনসিলভেনিয়া, বস্টন, কানেকটিকাটের বাংলাদেশীরা তাদের পশু কোরবানী করেন বিভিন্ন খামারে। আবার অসংখ্য প্রবাসীর কুরবানীর পশুর অর্ডার নিয়েছে বাংলাদেশী গ্রোসারিগুলো। ফ্লোরিডা, ভার্জিনিয়া, আটলান্টা, আটলান্টিক সিটি, প্যাটারসন, ফিলাডেলফিয়া, বস্টন, নিউইয়র্ক, লসএঞ্জেলেস, মিশিগান, শিকাগো থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী এ বছর ১০ হাজারের বেশী গরু এবং ৫০ হাজার খাশী কোরবানী হচ্ছে।
আবহাওয়া অনুক’লে থাকায় নতুন পোশাকে নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা দলবেধে আত্মীয়-স্বজন আর বন্ধু-বান্ধবীদের বাসায় ঘোরাঘুরি করছে। অভিভাবকদের মধ্যে যারা ছুটি পাননি, তারা নামাজ আদায়ের পরই কর্মস্থলে গেছেন গতানুগতিক ধারায়।
বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার নিউইয়র্ক সিটির ব্রুকলীনে ঈদের নামাজ আদায় করেন। কেয়ারটেকার সরকারের সাবেক প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরুদ্দিন আহমেদ ভার্জিনিয়া, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব:) মঈন ইউ আহমেদ ফ্লোরিডা এবং সাবেক মন্ত্রী সাদেক হোসেন খোকা নিউইয়র্কে ঈদের নামাজ আদায় করেন।
নিউইয়র্কে সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত হয়েছে কুইন্সে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, ব্রুকলীনে বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার, এস্টোরিয়ায় আল আমিন মসজিদ, চার্চ-ম্যাকডোনাল্ডে বায়তুল জান্নাহ মসজিদ, ওজোনপার্কে আল আমান মসজিদ, নিউজার্সির প্যাটারসনে জালালাবাদ মসজিদের ব্যবস্থাপনায়।
এদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সারাবিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়কে ঈদ মুবারক জানিয়ে বলেছে, ‘মক্কা এবং মদিনায় পবিত্র হজ্বব্রত পালন শেষে আমরা আশা করছি মুসলিম সম্প্রদায় অর্থপূর্ণ এবং আশির্বাদমূলক ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন।’
ঈদুল আজহাকে ত্যাগের মহিমা হিসেবেও মনে করা হয়, যে সময়ে কোটি কোটি মুসলমান সেবামূলক কাজে লিপ্ত থাকেন। যারা ভাগ্যহত, তাদের প্রতিও সদয় হন। পরিবার এবং বন্ধু-বান্ধব নিয়ে মহাখুশীর এ দিনটি তারা উদযাপন করেন। আর এদিনেও বিভিন্ন গোষ্ঠি, বর্ণ এবং ভাষাভাষীর মানুষেরা এক কাতারে দাঁড়িয়ে শান্তির জন্যে নামাজ আদায় করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক ১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ভোর রাতে প্রদত্ত বিবৃতিতে ‘ঈদ মুবারক এবং হজ্ব মাবরোর’ উচ্চারণ করাও হয়েছে।
১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সারা আমেরিকায় পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। আমেরিকায় ২৬ শতাধিক মসজিদের ব্যবস্থাপনায় বহুস্থানেই খোলা মাঠে ঈদ-জামাতের ব্যবস্থা হয়েছে।

 

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ।