Tuesday, October 17, 2017

যুক্তরাষ্ট্রের নেভাদা রাজ্যের জনপ্রিয় পর্যটন শহর লাস ভেগাসের একটি কনসার্টে এক বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিতে অন্তত ৫৮ জন নিহত এবং পাঁচ শতাধিক লোক আহত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভূখণ্ডে এটি সবচেয়ে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা।

স্থানীয় সময় রোববার রাতে মান্দালয় বে ক্যাসিনোর পাশে উন্মুক্ত চত্বরে কনসার্ট চলাকালে এ গুলির ঘটনা ঘটে। লাস ভেগাস মেট্রোপলিটন পুলিশ জানায়, সন্দেহভাজন বন্দুকধারীর মরদেহ হোটেল কক্ষে পাওয়া গেছে। তার নাম স্টিফেন প্যাডক, বয়স ৬৪ বছর। তার কক্ষে ১০টি রাইফেলও পাওয়া যায়। নিজের গুলিতে সে মারা গেছে বলে পুলিশের দাবি। ডেইলি মেইল জানায়, প্যাডক ছিলেন লাইসেন্সপ্রাপ্ত পাইলট। তিনি লকহিড মার্টিনে অডিটর হিসেবে কাজ করেছেন। ঘটনাস্থলের পাশেই তার একটি ফ্ল্যাট রয়েছে।

এই হামলার সঙ্গে কোনো জঙ্গি সংযোগ ছিল না বলে জানিয়েছেন এফবিআইর লাস ভেগাস অফিসের একজন কর্মকর্তা। তবে ইসলামিক স্টেট এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। আইএসের বার্তা সংস্থা আমাক-এ বলা হয়, হামলাকারী তাদের একজন সৈনিক। কয়েক মাস আগে সে ইসলাম গ্রহণ করেছে। কয়েকদিন আগে আইএসের প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি এক অডিও বার্তায় ‘কাফেরদের’ ওপর একের পর এক হামলা চালানোর আহ্বান জানায়। তারপরই আইএসের এ ঘোষণা এল।

নিহত ওই সন্দেহভাজন একজন স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, মান্দালয় বে ক্যাসিনোর ৩২ তলা থেকেই পাশের খোলা জায়গায় কনসার্টে জড়ো হওয়া মানুষের ওপর অস্ত্রের গুলি চালানো হয়। সেখানে তখন উপস্থিত ছিলেন ২২ হাজার দর্শক। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আসা ভিডিওতে দেখা যায়, গান চলার মধ্যেই হঠাৎ স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের গুলির আওয়াজ শুরু হলে কনসার্ট থমকে যায়। গান শুনতে আসা দর্শকরা খোলা জায়গায় মাথা নিচু করে পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে রুট নাইনটি ওয়ান হারভেস্ট সংগীত উৎসবে গুলির শব্দ পাওয়া যায়। এরপরই আতঙ্কিত হয়ে লোকজন ছোটাছুটি শুরু করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কনসার্টটি প্রায় শেষের দিকে ছিল। সংগীতশিল্পী জ্যাসন আলদিয়ান যখন সংগীত পরিবেশন করছিলেন তখনই গুলি শুরু হয়।

এরই মধ্যে ঘটনাস্থলের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ওই ভিডিওতে লোকজনকে ছোটাছুটি করতে দেখা গেছে। কয়েকটি ভিডিও ক্লিপে গুলির শব্দও শোনা গেছে। লোকজনকে ওই এলাকা এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেয় পুলিশ। পরে পুরো পরিস্থিতি নিয়ে একটি সংবাদ সম্মেলন করেন লাস ভেগাস মেট্রোপলিটন পুলিশের শেরিফ জোসেফ লম্বার্ডো। তিনি জানান, নিহতদের মধ্যে দু’জন পুলিশ কর্মকর্তাও রয়েছেন, যারা সে সময় কর্তব্যরত ছিলেন না। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ ঘটনায় গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন। তিনি এ ঘটনাকে ‘খাঁটি শয়তানের’ কাজ বলে মন্তব্য করেছেন। বুধবার তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাচ্ছেন। আটর্নি জেনারেল জেফ সেশন্স বলেছেন, এ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার সময় শত শত গুলি করা হয়েছে। হামলার পরই ক্যাসিনোর আশপাশের এলাকা খালি করে দেয়া হয়। বন্ধ করে দেয়া হয় রাস্তা। লাস ভেগাসের ম্যাককারান বিমানবন্দরে অবতরণের অপেক্ষায় থাকা কয়েকটি ফ্লাইট ঘুরিয়ে দেয়া হয়। হামলায় ৫১৫ জন আহত হয়েছে বলে জানায় এবিসি নিউজ। আহতদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ফলে নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এটি সবচেয়ে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা বলে জানায় রয়টার্স। এর আগে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলাটি ছিল গত বছর অরল্যান্ডোর একটি নৈশ ক্লাবে। সেখানে হামলায় মারা যায় ৪৯ জন সমকামী। আইএস সে হামলার দায় স্বীকার করে।

লাস ভেগাস জুয়া খেলা, কেনাকাটা ও বিনোদনের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে সুপরিচিত। প্রতি বছর অন্তত ৩৫ লাখ মানুষ এখানে বেড়াতে যান। লাস ভেগাস যে রাজ্যে অবস্থিত সেই নেভাদার বন্দুক আইন অত্যন্ত শিথিল। এখানে বন্দুক বহন ও কেনাবেচার জন্য সরকারি অনুমতির প্রয়োজন পড়ে না। স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র এবং গোলাবারুদও ইচ্ছামতো কেনা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক সহিংসতায় প্রতি বছর বহু মানুষ মারা যায়। ২০১৭ সালে এ পর্যন্ত ২৭৩টি বন্দুক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে বলে জানায় পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ। এতে অন্তত ১১,৬২১ জন নিহত এবং ২৩,৪৩৩ জন আহত হয়েছে।

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন। ধন্যবাদ।