Dec 15, 2017

নিউইয়র্ক : সেনবাগ উপজেলা জাতীয়তাবাদি ফোরামের সভায় বক্তব্য রাখছেন জয়নাল আবেদীন ফারুক। ছবি-এনআরবি নিউজ।

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : ‘সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে নির্বাচন দিয়ে দেখুক-কে জয়ী হয়। দোয়া করবেন, বেগম খালেদা জিয়া আবারো প্রধানমন্ত্রী হবেন-এটি খুব দূরে নয়’-এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বিএনপি নেতা এবং বিরোধী দলীয় সাবেক হুইপ জয়নাল আবেদীন ফারুক। রোহিঙ্গা ইস্যুতে ফারুক বলেন, ‘এখন সময় হচ্ছে সকলকে ডেকে গোল-টেবিল বৈঠকের মধ্য দিয়ে জাতীয় ঐক্যমত সৃষ্টি করার। কিন্তু সেটি না করে সরকার প্রকারান্তরে বাংলাদেশকে মিত্রহীন করার পথে চলছে।’
প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা প্রসঙ্গে জয়নাল ফারুক বলেন, ‘পদত্যাগ পত্রের নামে যে নাটক জাতির সামনে উপস্থাপন করা হয়েছে, ৭ লাইনের সেই পত্রে বানান ভুল ৫টি। এ অবস্থায় ১৬ কোটি মানুষ লজ্জা পেলেও এটর্নী জেনারেল কিংবা আইনমন্ত্রী লজ্জা পাননি।’ ‘লাজ-লজ্জাহীন সরকার বিচার বিভাগকে কুক্ষিগত করার প্রয়াস চালাচ্ছে পুনরায় একদলীয় বাকশালী স্বৈরশাসন কায়েমের মতলবে’-অভিযোগ করেন ফারুক। তিনি বলেন, ‘জনতার ধৈর্যের বাধ ভেঙ্গে গেলে পুলিশ আর বুলেট কিংবা দলীয় সন্ত্রাসী দিয়ে আন্দোলন ঠেকানো যাবে না। জনতার রোষানলে পড়তেই হবে অপশাসন আর দু:শাসনে লিপ্তদের’।
জয়নাল আবেদীন ফারুক সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপন করে আরো বলেন, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির কথিত নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে কঠিন সংকটে ঠেলে দেয়া হয়েছে। বর্তমান রাজনৈতিক সংকটের জন্যে দায়ী আওয়ামী লীগ।’ ‘বিএনপি আরো ২০ বছর ক্ষমতার বাইরে থাকতে রাজি, তবে মানুষকে ভোটাধিকার দিতে হবে, নির্ভয়ে ভোট প্রদানের পরিবেশ তৈরী করতে হবে। বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাসী রাজনৈতিক দল। সুষ্ঠু নির্বাচনের ফলাফল মেনে নিতে বিএনপি কখনোই দ্বিধা করবে না’-বলেন ফারুক। তবে এই সরকারের ওপর বিএনপির কোন বিশ্বাস নেই, বাংলাদেশের ১% শতাংশ মানুষও তাদের ক্ষমতায় দেখতে আগ্রহী নয়’-উল্লেখ করেন জয়নাল ফারুক।
৮ অক্টোবর রোববার রাতে নিউইয়র্ক সিটির ব্রুকলীনে গ্রীণহাউজ রেস্টুরেন্টে সেনবাগ উপজেলা জাতীয়তাবাদি ফোরাম আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক এই চীফ হুইপ। নোয়াখালীর সেনবাগ এলাকা থেকে তিনি ৫ বার এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার উপস্থিতিতে সভাটি মূলত: যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সমাবেশে পরিণত হয়। হোস্ট সংগঠনের সভাপতি জাহাঙ্গির সোহরাওয়ার্দি সভাপতিত্ব করেন। অতিথি হিসেবে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও জাসাস নেত্রী বেবী নাজনীন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, যুগ্ম সম্পাদক কাজী আজম, কোষাধ্যক্ষ জসীম ভ’ইয়া, বাংলাদেশ সোসাইটির বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারমান এম আজিজ, যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি আলহাজ্ব বাবরউদ্দিন, যুক্তরাষ্ট্র জাসাসের সভাপতি আলহাজ্ব আবু তাহের, কম্যুনিটি লিডার আলী ইমাম শিকদার এবং কাজী নয়ন, নিউইয়র্ক সিটি বিএনপির সভাপতি মাহফুজুল মাওলা নান্নু, বিএনপি নেত্রী সৈয়দা মাহমুদা শিরিন, বৃহত্তর নোয়াখালী সোসাইটির সভাপতি রব মিয়া প্রমুখ।
কন্ঠশিল্পী ও বিএনপি নেত্রী বেবী নাজনীন বলেন, ‘দেশের মানুষ জনগণের সরকার চায়। পরিবর্তন চায় আপামর জনতা।’
বিএনপি নেতা অধ্যাপক দেলোয়ার বলেন, ‘দেশবাসীর মত আমরা প্রবাসীরাও অবাক বিস্ময়ে অবলোকন করছি প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ঘটনাবলী। এভাবে বিচার বিভাগের মর্যাদা ভুলুন্ঠিত করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে।’
মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল বলেন, ‘আন্দোলন ব্যতিত শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন স্বৈরাচার সরকারকে হঠানো যাবে না। আমরা নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছি।’
কাজী আজম বলেন, ‘১/১১ পরবর্তী মঈন-ফকরুদ্দিন সরকারের বিরুদ্ধে এই প্রবাস থেকে আমরা দুর্বার আন্দোলন রচনা করেছিলাম। আবার নির্দেশ চাচ্ছি বেগম জিয়ার। জাতিসংঘ, স্টেট ডিপার্টমেন্ট, কংগ্রেসের সাথে লবিং শুরু করবো ১/১১ এর চেতনায়।’
জসীম ভ’ইয়া বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটিয়ে বেগম জিয়ার নেতৃত্বে জনগণের সরকার গঠিত হবে; এটি এখন সময়ের ব্যাপার।’
এম আজিজ বলেন, ‘শেখ হাসিনার কাছে বাংলাদেশ নিরাপদ নয়-এটি প্রমাণিত সত্য।’

 

8 Comments

kamal October 9, 2017 at 10:10 am

Fazeel….. this is not job for Army….. Don’t think Army is yours now

kamal October 9, 2017 at 10:11 am

what did you do? Look your face…… then demand logically…… Bangladesh Nangta party (BNP) is dead now

kamal October 9, 2017 at 10:13 am

Ghosheti Begum announced with Dr Yunus….. Awamileague cannot build padma Bridge…. we will build two bridges….. where is ghosheti Begum…. penetrate a long Brinjal into her mouth

সাঈদ, মুক্তিযোদ্ধা বিমানসেনা October 9, 2017 at 10:35 am

Because your party was given birth by the Military Officer? Do you know your party was borne as a জারজ সন্তান?

Palash October 9, 2017 at 4:21 pm

জয়নাল সাহেব , আপনাদের দল এর জন্ম যেন কোথায় ?

সাঈদ, মুক্তিযোদ্ধা বিমানসেনা October 9, 2017 at 9:54 pm

যে সেনাবাহিনীর ঔরসে আপনাদের দলের জন্ম সেই সেনাবাহিনী এখন আর নেই। এখনকার সেনাবাহিনী আদর্শ সেনা বাহিনী যারা প্রেসিডেন্ট হবার স্বপ্ন দেখেন না। তারা কেবলই দেশ মাতৃকাকে শত্রুর হাত থেকে রক্ষা করবে এটাই উদ্দেশ্য।

বাংলার একজন বাংগালী October 10, 2017 at 12:39 pm

ভাইজান, আপনার দল ক্ষমতায় গিয়েছিল সামরিক ইউনিফরমের সহায়তায় সে কথা সবাই জানে। সেই সামরিক বাহিনীকে আবার যদি ক্ষমতার শিড়ি হিসেবে ব্যবহার করতে চান তবে বলতে হয় আপনারা এখনও সেই আহম্মকের স্বর্গেই বাস করছেন। দুনিয় বদলেছে, দেশ বদলেছে এবং বদলেছে দেশের মানুষ কিন্তু আপনারা এখনও সেখানেই রয়ে গেছেন। দূঃখ হয় আপনাদেরকে আমার দেশের মানুষ রাজনীতি করার সুযোগ দিচ্ছে।

সাঈদ, মুক্তিযোদ্ধা বিমানসেনা October 12, 2017 at 8:17 pm

লজ্জা কি জিনিষ তাও কি ভুলে গেলে নেতা? আপনাদের দলের জন্ম দিয়েছিলেন একজন সামরিক আইন প্রশাসক এবং ক্ষমতায় গিয়েছিলেন বন্দুকের নলের সাহায্যে যে ক্ষমতারোহনের অনেক সাক্ষী এখনও জীবিত। তখন বাধ্য হয়ে আমিও আপনাদের দলের জন্মদাতার পক্ষে কিছু কাজ করেছিলাম। আপনারা কি এখনও জানেন না আপনাদের দলের জন্ম ইতিহাস? সেই সামরিক আইন প্রশাসককে কারা বুদ্ধি দিয়েছিল দল করার জন্য তাও কি মনে নেই? সেই শাহ আজিজ, আব্দুল আলীম। সাকা/ফকাচৌদের পেছনে ইতিহাস জানেন কি? আপনার কি জানা আছে যে সবুর খানের মত লোকের কবর কোথায় এবং কে সেই কাজটি করেছিলেন? যদি এ সব না জানা থাকে তবে জেনে নিন এবং যদি আপনি শাহ আজিজ, আবদুল আলীমদের বশংবদ না হয়ে থাকেন তবে আর জিয়ার কিংবা তার অবৈধ জন্ম দেয়া দলের জন্য এই সব বলবেন না।

Leave a Comment

মহিউদ্দিন স্মরণে দোয়া মাহফিল

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): চট্টাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ইন্তেকালে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করা হয়েছে। দলের পক্ষ থেকে সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ এক বিবৃতিতে এই শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, শুক্রবার (১৫ ডিসেম্বর) দিবাগত ভোর রাত ৩টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর মেহেদিবাগে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন ইন্তেকাল করেন। খবর ইউএনএ’র।
এদিকে সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিনের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১৫ ডিসেম্বর শুক্রবার এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এদিন রাত ৯টায় জ্যাকসন হাইটসের নিউ মেজবান রেষ্টুরেন্টে এই দোয়া মাহফিল হবে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

পাঠকের মন্তব্য

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন।
ধন্যবাদ।