Jan 17, 2018


আজ মুম্বাইয়ে বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবসের ৪৬তম বার্ষিকী উদযাপিত হয়। এ উপলক্ষ্যে মুম্বাইয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের উদ্যোগে স্থানীয় ”ন্যাশনাল সেন্টার ফর দা পারফর্মিং আর্টস” ভবনে বাংলাদেশের জাতীয় চলচিত্র পুরষ্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ”গেরিলা” প্রদর্শন করা হয়। শুরুতে আনষ্ঠানিকভাবে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে মুম্বাই-এ বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনার জনাব মোঃ লুৎফর রহমান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন। এরপর মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।
মুম্বাই-এ নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনার তাঁর বক্তব্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এবং স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বাংলাদেশের সকল নাগরিককে জাতির অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির জন্য সচেতনভাবে কাজ করার এবং বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহনকারী ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর (অবসরপ্রাপ্ত) দু’জন সদস্য তাঁদের যুদ্ধকালীন স্মৃতিচারন করেন।
এরপর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ, মহারাষ্ট্র সরকারের উচ্চপদস্থ সরকারী কর্মকর্তা, মুম্বাই-এ বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রতিনিধিবৃন্দ, মুম্বাই-এর ডিপ্লোমেটিক কোরের প্রতিনিধি এবং অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য ”গেরিলা” চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়। এ অনুষ্ঠানে উপ-হাইকমিশনে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ সপরিবারে উপস্থিত ছিলেন। বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানটির মূল উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশের ঐতিহাসিক মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও পটভূমি তুলে ধরা। চলচ্চিত্রটিতে প্রদর্শিত বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সমসাময়িক এবং প্রামানিক বর্ণনা আমন্ত্রিত দর্শকদের মাঝে ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করে। অনুষ্ঠান শেষে আগত অতিথিদের বাঙ্গালী খাবারে আপ্যায়িত করা হয়।

0 Comments

Leave a Comment

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মন্তব্য

বিজ্ঞাপন

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন।
ধন্যবাদ।

বিজ্ঞাপন