Jan 17, 2018


সামাজিক সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি অফ পেনসেল্ভেনিয়ার উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত হল বাংলাদেশের ৪৬ তম বিজয় উৎসব। গত ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ফিলাডেলফিয়ার সেন্টার সিটির তারকা রেস্টুরেন্টে আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয় দিনটি।
অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত এবং গীতা পাঠ করা হয়। এরপর সভাস্থলে বেজে ওঠে বাংলাদেশ এবং আমেরিকার জাতীয় সংগীত। মুক্তিযুদ্ধে আত্মত্যাগকারী বীর শহীদদের প্রতি সম্মান জ্ঞাপন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন আগত অতিথিবৃন্দ।
বিজয় উৎসবে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ইফতেখার হোসেন ফরহাদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মনসুর আলী মিঠু। সংগঠনের পক্ষ থেকে সভাপতির শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের অবতারণা ঘটে। সংগঠনের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন আবদুল খালেক, মোঃ তোজাম্মেল হক, বিটিএসপির সাধারণ সম্পাদক এবিএম আলতামাশ বাবুল, বিটিএসপির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মোঃ হায়দার আলী, জাতীয় সংসদের সাবেক সাংসদ আবদুল কাদের বিশ্বাস (বিএনপি), বিএনপির সাবেক সংগ্রামী ছাত্রদল নেতা ও পেনসেল্ভেনিয়া বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শরীফ খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের (বীর প্রতীক), ট্রাই স্টেট আওয়ামী লীগ প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক আবুল খায়ের মিয়া এবং সেক্রেটারি মোঃ তোজাম্মেল হক। তাছাড়া আমেরিকার মূল ধারার রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন টাউনশিপ ও ব্যুরোর নেতৃবৃন্দ এতে উপস্থিত ছিলেন। আমেরিকার ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রতিনিধি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আবু আমিন রহমান, ডেলাওয়ার কাউন্টির ডেমোক্র্যাট পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান শেলী রহমান, আপার ডার্বির কাউন্সিলম্যান শেখ সিদ্দিক, মেলবোর্ন ব্যুরোর কাউন্সিলম্যান ফেরদৌস ইসলাম, কাউন্সিলম্যান মোঃ নুরুল হাসান, বিটিএসপির প্রধান উপদেষ্টা এ আর খান (লাভলু)।
এবারের বিজয় দিবসে প্রবাসী নতুন প্রজন্মদের মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ইংরেজী ভাষায় অনূদিত বিশেষ হ্যান্ডবুক প্রদান করা হয়। উক্ত হ্যান্ডবুকের আলোকে ৬০ জন শিক্ষার্থী তাৎক্ষণিক কুইজে অংশ নেন। ২-১ জন ছাড়া প্রায় সকল শিক্ষার্থী উক্ত কুইজে উত্তীর্ণ হন। এর মাধ্যমে আয়োজকগন প্রবাসে অবস্থানরত নতুন প্রজন্মদের দেশ নিয়ে জানার ব্যাপারে ইতিবাচক ভাবে মূল্যায়ন করেন। কুইজে অংশ নেয়া সবাইকে বিজয় স্মারক হিসেবে বিশেষ সনদ প্রদান করা হয়। এছাড়া সংগঠনের দক্ষ কর্মী, বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, গুণীজনদের উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
বক্তাদের বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় সমস্বরে উচ্চারিত হয়।
সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কালজয়ী দেশাত্মবোধক সঙ্গীত পরিবেশন করেন শাহ মাহবুব, জলি দাস ও স্বপন দাস।
সবশেষে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দের সম্মানে বিশেষ ডিনারের ব্যবস্থা করা হয়।

0 Comments

Leave a Comment

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মন্তব্য

বিজ্ঞাপন

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন।
ধন্যবাদ।

বিজ্ঞাপন