Feb 24, 2018

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অপসারণের দাবিতে প্রকাশিত পোস্টার।

এনআরবি নিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : ট্রাম্পকে ইমপিচ করার দাবির সাথে কংগ্রেসম্যানদের সংহতি প্রকাশের পরিধি বিস্তৃত হচ্ছে। একইসাথে ১৭ ফেব্রুয়ারি আমেরিকার ৫০০ স্থানে একযোগে ‘ট্রাম্পকে ইমপিচ’ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছেন ডেমক্র্যাটিক পার্টির বিত্তশালী সমর্থকদের অন্যতম টম স্টাইয়ার (Tom Steyer)।
এ প্রসঙ্গে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে কংগ্রেসের দৃষ্টি আকর্ষণ করে টম বলেছেন, ‘অনেক হয়েছে, আর নয়। ট্রাম্পকে আরো সময় দেয়ার অর্থ হবে আমেরিকার মান-মর্যাদাকে আরো ভূলুন্ঠিত করা। ওয়াশিংটনে আমাদের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের এ নিয়ে আর কালক্ষেপনের অবকাশ থাকতে পারে না। আনফিট প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অপসারণের মধ্য দিয়েই আমার ইতিহাস-ঐতিহ্য, মান-সম্মান পুনরুদ্ধার করা সম্ভব।’
গত অক্টোবরে টম স্টাইয়ার প্রতিষ্ঠিত ‘নীড টু ইমপিচ’ আন্দোলনের সূচনা ঘটে টিভি ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এ যাবত ৪৯ লাখেরও অধিক আমেরিকান স্বাক্ষর করেছেন কংগ্রেসকে অবিলম্বে ট্রাম্পকে অপসারণের বিল পাশের আহবান জানিয়ে। টম স্টাইয়ার উল্লেখ করেছেন, আমার কংগ্রেসমানরা নানা অজুহাত দেখিয়ে ইমপিচমেন্ট বিলকে অবজ্ঞা করে চলেছেন, যা কোনভাবেই জনস্বার্থেও পরিপূরক নয়। তবে সারা আমেরিকায় ট্রাম্পের গণবিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে জনমত ক্রমান্বয়ে তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। এ দিকে খেয়াল রেখেই রিপাবলিকান এবং ডেমক্র্যাট কংগ্রেসম্যানদের আন্তরিক অর্থেই ইমপিচমেন্টের বিল বিপুলভাবে পাশে মনোযোগী হওয়া দরকার। কংগ্রেসম্যানরা সময়ক্ষেপণের মধ্য দিয়ে প্রকারান্তরে তাদের ওপর অর্পিত সাংবিধানিক দায়িত্বের প্রতিই অবহেলা করছেন।
গত সপ্তাহেও ট্রাম্পকে ইমপিচের বিল কংগ্রেসের ভোটে দেয়া হয়। সে সময় পক্ষে মাত্র ৬৬ ভোট পড়ে। বিপক্ষে ৩৫৫। টেক্সাসের কংগ্রেসমান (ডেমক্র্যাট) আল গ্রীণ গত ডিসেম্বরেও উঠিয়েছিলেন। সে সময় পক্ষে ভোট পড়েছিল ৫৮টি অর্থাৎ কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে ৮ ভোট বেড়েছে।

 

0 Comments

Leave a Comment

বিজ্ঞাপন

পাঠকের মন্তব্য

বিজ্ঞাপন

লক্ষ্য করুন

প্রবাসের আরো খবর কিংবা অন্য যে কোন খবর অথবা লেখালেখি ইত্যাদি খুঁজতে উপরে মেনুতে গিয়ে আপনার কাংখিত অংশে ক্লিক করুন। অথবা ‌উপরেরর মেনু'র সর্বডানে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার খবর বা লেখার হেডিং এর একটি শব্দ ইউনিকোড ফন্টে টাইপ করে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন।
ধন্যবাদ।

বিজ্ঞাপন